artificial intelligence, ai, robot

দ্বিখণ্ডিত ব্রেইনঃ কার কাজ কি ?

ব্যাহিক ভাবে মানব ব্রেইন একটি মনে হলেও এটি দুটি খণ্ডে বিভক্ত।প্রাচীন মিশরীয়রাই সর্ব প্রথম খেয়াল করে যে, আমাদের ব্রেইনের বাম ভাগ আমাদের দেহের ডান অংশের অঙ্গগুলোকে নিয়ন্ত্রণ করে ও ব্রেইনের ডান ভাগ দেহের বাম অংশের অঙ্গ গুলোকে নিয়ন্ত্রণ করে। 

১৯৬০ সালে Roger Sperry আবিষ্কার করেন,আমাদের ব্রেইনের এই দুই ভাগ ( Hemisphere ) একে অপরের সাথে গভীর ভাবে সম্পর্কিত। এদের কে জোড়া লাগিয়ে রাখে করপাস ক্যালোসাম।এর আগ অব্দি মানুষ মনে করত আমাদের দেহের অন্যান্য অঙ্গের মত ব্রেইন ও দুটি। 

ব্রেইন স্ট্রোকের রোগীদের উপর পর্যবেক্ষণ করে আরও কিছু মজাদার তথ্য পাওয়া যায়।মানুষের ব্রেইনের বামভাগ মূলত গাণিতিক ও যৌক্তিক বিষয়াবলী নিয়ন্ত্রণ করে। অন্যদিকে ব্রেইনের ডান ভাগ সৃজনশীল চিন্তা ও সমন্বয়কারী হিসেবে কাজ করে। 

যেখানে ব্রেইনের বাম ভাগ যুক্তির উপর নির্ভর করে সিদ্ধান্ত নেয় সেখানে ব্রেইনের ডান ভাগ কল্পনা ও অনুমানের উপর সিদ্ধান্ত নেয়।তারমানে জীবন ধারণের জন্য ব্রেইনের এই দুই ভাগই সমান গুরুত্বপূর্ণ।মস্তিষ্কে পৃথক বাম ও ডান অংশ রয়েছে, এমন তত্ত্বের জন্য ১৯৮১ সালে নোবেল পুরস্কার দেওয়া হয়েছিল। 

বলা যায় জনপ্রিয় লেখক হুমায়ুন আহমেদ স্যার এর হিমু চরিত্রটি  ব্রেইনের ডান ভাগ ও তাঁরই সৃষ্টি মিসির আলী চরিত্রটি ব্রেইনের বাম ভাগের যথার্থ রূপক।

কিন্তু,সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের ইউটাহ বিশ্ববিদ্যালয়ের শীর্ষস্থানীয় বিজ্ঞানী জেফ্রে অ্যান্ডারসন এক হাজারের বেশি লোকের ওপর গবেষণা চালিয়েছেন। লক্ষ্য ছিল, মানব-মস্তিষ্কের কোন অংশ কীভাবে কাজ করে, তা জানা। তিনি বলছেন, তাঁর গবেষণায় নিশ্চিত হয়েছে, মস্তিষ্কের ওই বিভাজনের ধারণা হলো একটা মিথ।

বিজ্ঞানী অ্যান্ডারসন বলেন, এটা ঠিক যে কিছু মানুষের অধিকতর পদ্ধতিগত ও যুক্তিভিত্তিক জ্ঞান-শৈলী রয়েছে; অন্যদের ক্ষেত্রে তা অধিকতর কুণ্ঠাহীন ও স্বতঃস্ফূর্ত। কিন্তু কোনোভাবেই এটা মস্তিষ্কের ডান বা বাঁ অংশের ভিন্ন ভিন্ন কাজের প্রমাণ নয়।

YOUR BRAIN LOVES YOU,

YOU SHOULD ALSO LOVE YOUR BRAIN